কোভিড-১৯ তুলনামূলক ভাবে একটি নতুন রোগ। এখনো এমন কোন প্রমাণ মেলেনি যে কোভিড-১৯ এর সময়ে রোজা রাখা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। তবে যারা শারীরিক ভাবে অসুস্থ তাদের রোজা না রাখাই উচিত অথবা ডাক্তারের পরামর্শে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। 

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং রোজা রাখা বিষয়ক অনেক গবেষণাতে দেখা যায় যে, রোজা মূলত শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেই সাহায্য করে। একটানা রোজা রাখলে শরীরে নতুন শ্বেত রক্ত কণিকা তৈরি হয়, যা ইমিউনিটি বাড়িয়ে শরীরকে নানা ধরনের সংক্রমণ থেকে দূরে রাখে। যখন আপনি দীর্ঘ সময়ের জন্য রোজা রাখেন তখন শ্বেত রক্ত কণিকার পরিমাণ কমে যেতে পারে। তাই শ্বেত রক্ত কণিকার পরিমাণ স্বাভাবিক রাখতে স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খেতে হবে।

কোভিড-১৯ মহামারির মাঝে রোজা রাখার সহায়ক পরামর্শ:
  • জরুরি দরকারে ঘর থেকে বের হলে অবশ্যই সঠিক ভাবে মাস্ক পরুন। একটু পর পর ২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুয়ে নিন। এবং একে অপরের থেকে কমপক্ষে ৩ ফিট বা এক মিটার দূরত্ব বজায় রাখুন 
  • অসুস্থ ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে অধিকাংশ আলেম রোজা না রাখার পরামর্শ দিয়ে থাকেন 
  • রোজার সময় জনসমাগম পূর্ণ এলাকা যেমন বাজার-ঘাট এড়িয়ে চলুন
  • রোজার সময়ে একটু বেশি বিশ্রাম নিন
  • নামাজের জন্য মসজিদে যাওয়া থেকে বিরত থাকুন
রমজানের সময় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে করণীয়ঃ
  • দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকার ফলে শরীর ক্লান্ত হয়ে যায়, যা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে দুর্বল করে। তাই অবশ্যই সেহরি করুন 
  • পরিমাণে কম কিন্তু পর্যাপ্ত পুষ্টিকর খাবার আপনার সারাদিনের পুষ্টির অভাবকে পূরণ করে
  • ফলমূল আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। তাই ইফতার ও সেহরির মধ্যবর্তী সময়ে প্রচুর ফল খান
  • অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকুন। সুস্বাস্থ্যের জন্যে সঠিক ওজন বজায় রাখা খুবই দরকারি, বিশেষত কোভিড-১৯ মহামারির সময়ে। অতিরিক্ত ওজন বিভিন্ন ধরনের রোগের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয় যেমন: হার্টের সমস্যা এবং ডায়াবেটিস। পাশাপাশি করোনায় সংক্রমণের সম্ভাবনাও বেড়ে যায়
  • ভাজাপোড়া, অতিরিক্ত চর্বি ও চিনি যুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন
  • বেশি পিপাসার্ত করে তোলে এমন খাবার গ্রহণে বিরত থাকুন
  • প্রতিদিন ১.৫ থেকে ২ লিটার পানি পান করুন

ইমিউন ফাংশন শক্তিশালী হলে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়লে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণের সম্ভাবনা অনেকাংশেই কমে যায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে কার্যকর উপায় হলো উচ্চ-ক্যালরি যুক্ত খাবার না খাওয়া এবং নিয়মিত ব্যায়াম করা।

Recommended Posts

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment