Harvard and Columbia Business Schools Feature Praava Health as Case Studies

Praava Health was recently featured as a case study by two prestigious American institutions – Harvard Business School and Columbia Business School.

The just-published Harvard Business School case study, Praava Health: A New Model for Bangladesh,” was prepared by Senior Lecturer Michael Chu, with the assistance of Research Associate Kairavi Dey, HBS India Research Center, for Professor Chu’s “Business at the Base of the Pyramid” course. It describes Praava’s founding and path to future growth;

“Praava Health (‘Praava’) delivered high-quality in-clinic primary and specialist care, backed by its own high-quality diagnostic laboratories, imaging, and pharmacy. Praava was founder Sylvana Sinha’s response to what she saw as a broken healthcare system in one of the world’s most populous countries, unable to provide efficient, reliable medical attention to the majority of its population. Centered on the patient, it had a flagship state-of-the-art medical center in Dhaka, and digital channels, including Bangladesh’s first patient app, telemedicine, and e-pharmacy. Behind all this was a highly qualified medical, technical, and management team, made possible by equity investments of $11.1 million.”

The Columbia Business School case study, which was published in September 2021 and written by Adjunct Professor of Business Lorraine Marchand, is titled, Praava Health: Reinventing Healthcare in Bangladesh.” A summary of the cases notes:

“Founded in 2016, Praava Health’s ‘click-and-brick’ healthcare model combined digital tools with state-of-the-art outpatient care, lab diagnostics, pharmacy services, and trusted physician/patient relationships to create a new type of health service for Bangladesh’s growing middle class. When COVID-19 struck in 2020, Praava Health became the country’s first private provider of COVID-19 tests, accelerating its trajectory as Bangladesh’s fastest-growing consumer healthcare brand. Well positioned for even further growth, this case asks students to consider how the company should prioritize its future investments, with a focus on the following options: expanding its digital toolbox, moving into new cities, building up its lab diagnostics business, or advancing into altogether new fields, such as medical data analytics.”

Such case studies are used by professors to challenge their students with real-life business situations. In each instance, Praava Founder and CEO Sylvana Q. Sinha was asked by the professors to join the students in class as they discussed Praava’s business development and prospects for expansion.

Sylvana commented, “We are really honored that two such highly-respected business schools would feature the Praava Health model as a teaching tool. Every time I’ve seen the case taught, I am impressed by the students’ insights into our company and pleased that so many are excited to learn more about investment in emerging markets like Bangladesh. I hope Praava’s story of innovation and growth might inspire some of these students to work for change and the improvement of lives in a corner of the globe most in need of their talents.”

More information on the Columbia Business School case study can be found here, and information on the Harvard Business School case study here.

আপনার পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত এবং আপনার সুস্থতা পরিকল্পনার গুরুত্ব

সাধারণত বাৎসরিক হেলথ চেক আপ এর সময় বিভিন্ন ক্রনিক রোগ এর চিকিৎসা ব্যবস্থা নির্ধারণ করতে একজন রোগীকে তাদের আত্মীয়দের স্বাস্থ্যের অবস্থা সম্পর্কেও জিজ্ঞাসা করা হয়। স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা রোগীর বিস্তারিত পারিবারিক ইতিহাস রেকর্ড করার চেষ্টা করেন যার মধ্যে থাকতে পারে রোগীর নিকট আত্মীয়- শিশু, ভাই ও বোন, পিতা ও মাতা, চাচা ও চাচি, ভাগ্নি এবং ভাগ্নে, দাদা ও দাদী এবং চাচাতো ভাই বোন এর স্বাস্থ্য তথ্য। রোগীর পারিবারিক ইতিহাস রেকর্ড করে, স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা রোগীর স্বাস্থ্যের অবস্থার কারণ এবং প্যাটার্ন গুলো সনাক্ত করতে পারে। কিন্তু এটি কেন এতো গুরুত্বপূর্ণ?

পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্তের গুরুত্ব

পরিবার গুলো একই ধরনের জেনেটিক ইতিহাস, পরিবেশ এবং আচরণ শেয়ার করে। সম্মিলিতভাবে, এই কারণগুলো পরিবারের ব্যাধি গুলোর দিকে ডাক্তারদেরকে ইঙ্গিত করতে পারে। স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা আত্মীয়দের মধ্যে রোগের প্যাটার্ন গুলো পর্যবেক্ষণ করে কোনো ব্যক্তি, পরিবারের সদস্য বা ভবিষ্যৎ প্রজন্ম কোনো নির্দিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার উচ্চ ঝুঁকিতে আছে কিনা তা সনাক্ত করতে পারেন। 

পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্তের মাধ্যমে রোগ সনাক্তকরণ

আপনার পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত আপনার হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক, কিছু ম্যালিগনসিস এবং টাইপ ২ ডায়াবেটিসের মতো রোগের ক্ষেত্রে সাধারণ অসুস্থতার গড় ঝুঁকির চেয়ে বেশি কিনা তা সনাক্ত করতে সহায়তা করতে পারে। জেনেটিক কারণ, পরিবেশগত পরিস্থিতি এবং জীবনযাত্রার ধরনের সংমিশ্রণ এই জটিল অসুস্থতা গুলোকে প্রভাবিত করে। আপনার পিতামাতা এবং পরিবারের অন্যান্যদের স্বাস্থ্য বৃত্তান্তের ধারণা রাখা গুরুত্বপূর্ণ।

আপনার পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত কীভাবে একটি স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন আপনাকে করতে হবে সে সম্পর্কে তথ্য দিতে পারে। আপনি স্ক্রিনিং টেস্ট করার পরিকল্পনা করতে পারেন অথবা আপনার বংশপরম্পরায় চলা রোগ হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করতে জীবনযাত্রার পরিবর্তন করতে পারেন। আপনি যদি আপনার বংশে কারোর কোনও স্বাস্থ্য সমস্যা সম্পর্কে জানেন তবে ডাক্তারকে অবহিত করা গুরুত্বপূর্ণ। আপনার পরিবারের স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত জানা আপনাকে আপনার স্বাস্থ্য সম্পর্কে আরও সক্রিয় হতে সহায়তা করতে পারে। ডাক্তারদেরকে আপনার পারিবারিক ইতিহাস সম্পর্কে অবহিত করার মাধ্যমে তারা সম্ভাব্য অসুস্থতা হ্রাস করার জন্য প্রতিরোধ এবং স্ক্রিনিং কৌশলের পরামর্শ দিতে পারেন।

আপনার পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত একত্র করতে, পরিবারের প্রতিটি সদস্যের যে স্বাস্থ্য সমস্যা বা রোগ রয়েছে তার একটি তালিকা তৈরি করুন। এমনকি যারা গত হয়েছেন তারদেরও। অসুস্থতার শুরুর বয়সও এই রিপোর্টে অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ। স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা আপনার রেকর্ড গুলোতে পরিবারের চিকিৎসা বৃত্তান্তে সমস্ত তথ্য গ্রহণ করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করবে।

আপনার সুস্থতার পরিকল্পনা

আপনি আপনার জিন পরিবর্তন করতে পারবেন না, তবে আপনি আপনার পরিবারে চলা রোগ হওয়ার ঝুঁকি কমাতে আপনার জীবন যাত্রাকে মানিয়ে নিতে পারেন। রোগের ঝুঁকি প্রতিটি ব্যক্তির জন্য পৃথক, যা বয়স, জীবনযাত্রার ধরণ এবং চিকিৎসা বৃত্তান্তের পরিবর্তনের উপর ভিত্তি করে সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তিত হয়। আপনার চিকিৎসা বৃত্তান্তের একটি সাম্প্রতিক রেকর্ড রেখে, আপনার পরিবারের চিকিৎসা বৃত্তান্ত আপডেট করে এবং আপনার ডাক্তারের সাথে এটি শেয়ার করে নেওয়া আপনার স্বাস্থ্য ঝুঁকি প্রতিরোধ করতে সহায়তা করবে। মনে রাখবেন যে আপনার স্বাস্থ্যের মধ্যে শারীরিক এবং মানসিক উভয় সমস্যা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। পারিবারিক ইতিহাসে বিষণ্ণতার মত মানসিক সমস্যা থাকলে আপনার পারিবারিক ডাক্তারকে জানানোও গুরুত্বপূর্ণ।

আপনার ডাক্তারের কাছে আপনার পরিবারের চিকিৎসা বৃত্তান্ত সম্পর্কে যত বেশি তথ্য থাকবে, আপনি তত ভাল যত্ন পাবেন।

Importance of Your Family Health History and Your Wellness Plan

At an annual health check or consultation for chronic disease management, a patient is asked about their relatives’ health status. Healthcare providers record a patient’s comprehensive family history, including the patient’s close relatives’ health information, including children, brothers and sisters, parents, aunts and uncles, nieces and nephews, grandparents, and cousins. By recording a patient’s family history, healthcare providers can identify the causes and patterns of a patient’s health journey. Why is this so important?

Importance of family health history

Families share similar genetic histories, environments, and behaviors. Collectively, these factors can point doctors to disorders that run in families. Healthcare providers can identify whether an individual, family members, or future generations are at a higher risk of a particular health issue by observing patterns of diseases among relatives. 

Identifying diseases through family health history

Your family health history can help to identify if you have a higher-than-average risk of common illnesses like heart disease, high blood pressure, stroke, certain malignancies, and Type 2 diabetes. A combination of genetic factors, environmental situations, and lifestyle choices influence these complicated illnesses. It’s important to become familiar with your parents and extended family’s health history.

Your family history might give you information about how to live a healthy lifestyle. You can plan for screening tests or adopt lifestyle changes to lower your chance of getting diseases that run in your family. It is important to inform your doctor if you know of any health issues in your family tree. Knowing your family’s health history can help you be more proactive about your health, and informing doctors of your family history allows them to suggest prevention and screening strategies to mitigate potential illnesses. 

To compile your family history, start by making a list of health issues or diseases that each family member has, including if they have died. The age of onset of illness should also be included in the report. Providers will add your family’s medical history to your records to ensure all information is captured. 

Your wellness plan

You can’t change your genes, but you can adapt your lifestyle to lower your risk of getting diseases that run in your family. Disease risks differ for each individual, which changes over time based on age, lifestyle choices, and changes in medical history. By keeping a current record of your medical history, updating your family’s medical history, and sharing it with your doctor can help prevent you from developing certain health conditions. Remember that your health includes both physical and mental issues. It’s also important to let your family doctor know if you have a family history of mental issues like depression. 

The more information your doctor has about your family’s medical history, the better care you’ll receive.